ইউটিউব চ্যানেল কি?ইউটিউব ভিডিও থেকে টাকা ইনকাম কিভাবে করবেন?

আস্সালামুয়ালাইকুম টেকনো এক্সটার পক্ষ থেকে আরো একটি নতুন এপিসোডে আপনাদের সকলকে স্বাগতম।এই এপিসিডে আপনি জানতে পারবেন ইউটিউব চ্যানেল কি?এবং ইউটিউব ভিডিও থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করবেন। ইউটিউব চ্যানেল কি সেটা বলতে গেলে একটি উদাহরণ যোগ করতে হয়।

যেমন আপনার অবশ্যই একটি ফেসবুক একাউন্ট আছে সেখানে আপনি ভিবিন্ন সময় নানান ধরণের ছবি আপলোড করে থাকেন এমনকি মাজে মধ্যে নিজেও ভিডিও তৈরি করে ফেসবুকে দিয়ে থাকেন। ইউটিউব চ্যানেল হলো ফেসবুকের মতোই একটি একাউন্ট এখানে আপনি আপনার তৈরি করা ভিডিও আপলোড করতে পারবেন।এবং এখানে যারা আপনাকে অনুসরণ করবে তারা সবাই আপনার ভিডিও দেখতে পারবে।

মোবাইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম:

আপনি আপনার মোবাইল দিয়েও ইউটিউব চ্যানেল খুলতে পারবেন।এজন্য আপনার একটি গুগল একাউন্ট থাকা লাগবে।এই গুগল একাউন্টটি দেখা যাবে আপনার ইউটিউবের সাথে যুক্ত আছে সেখানে থেকে ডান পাশে আপনার গুগল একাউন্টের উপর ক্লিক করে ক্রিয়েট একাউন্ট করে আপনার জন্য একটি নতুন একাউন্ট তৈরি করে নিবেন।

এরপর একাউন্ট কে কাস্টমাইজ করে নিতে হবে প্রথমে আপনার ইউটিউব চ্যানেল এর একটা নাম দিতে হবে।এরপর আপনার চ্যানেলের জন্য একটি লোগো বানাতে হবে।লোগো কভার ও প্রোফাইল ফটো এই দুইভাবে বিভক্ত থাকে।আপনাকে দুইটি ফটো নির্বাচন করতে হবে।আপনি আপনার নিস সম্পর্কিত কন্টেন্ট বানাবেন।এতে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে অনেক গ্র হতে থাকবে।

আরও জানুনঃ

গুগল মিট বনাম জুম কোন অ্যাপটি সেরা?

Quora কি?Quora ব্যাবহারে সুবিধা কি কি?-টেকনো এক্সট্রা

সি প্রোগ্রামিং এর কাজ কী?সি এর ইতিহাস ও বৈশিষ্ট-টেকনো এক্সট্রা

মেসেঞ্জার রুম ব্যাবহার করার নিয়ম-টেকনো এক্সট্রা

ইউটিউব ভিডিও কিভাবে বানাবেন:

ইউটিউব ভিডিও যত ভালো হবে আপনার ভিডিও তত ভাইরাল হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকবে।এজন্য আপনাকে ভালো মানের একটি ভিডিও বানাতে হবে।বর্তমানে একটি ভিডিও ভাইরাল হবে কি না সেটা অনেকগুলো বিষয়ের উপর নির্ভর করে যেমন ভিডিও থাবনিল এবং ভিডিও কোয়ালিটি।

ধরুন,আপনার ভিডিওর থাবনিল খুবই ভালো কিন্তু ভিডিও কোয়ালিটি খুবই খারাপ তাহলে কিন্তু আপনার ভিডিও দেখে পাবলিক ইমপ্রেস হবে ঠিক ই কিন্তু ভিডিও আর দেখবে না। পরে ওই ভিডিও ইউটিউব এলগোরিদম রেঙ্ক কমিয়ে দিবে। আবার ধরুন,আপনার ভিডিও খুবই হাই কোয়ালিটি সম্পন্ন কিন্তু ভিডিওর থাবনিল বেশি একটা ভালো না তাহলে কিন্তু ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সম্ভবনা খুবই কম। এজন্য ভিডিও বানাতে গেলে অবশ্যই কোয়ালিটির উপর খুব গুরুত্ব দিতে হবে। এবং সেই সাথে ভালো মানের থাবনিল বানাতে হবে।

এজন্য একটি কন্টেন্ট বানাতে গেলে অবশ্যই ৭-৮ ঘন্টা সময় নিয়ে আপনাকে কন্টেন্ট বানাতে হবে। যদি ভিডিও বানাতে সময় দেন ৩ ঘন্টা তাহলে আপনাকে কন্টেন্ট বানাতে সময় দিতে হবে ৫,৬ ঘন্টা।ইউটিউব তাদের চ্যানেলে নতুন একটি ফিচার যুক্ত করেছে সেটা হলো ইউটিউব ইন্ট্রো ভিডিও এটা এখন খুবই ট্রেন্ড চলতেছে। ইন্ট্রো ভিডিও যত ভালো হবে আপনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পসিবিলিটি অনেক বেশি।তাই আপনার ভিডিওটি কোন টপিক্সের উপর সেটার উপর খুবই গুরুত্ব দিয়ে ইন্ট্রো ভিডিও বানাবেন।

ইউটিউব ভিডিও থেকে টাকা আয় করার নিয়ম

আপনার যদি ইউটিউব চ্যানেল থাকে এবং আপনি যদি নিয়মিত ভিডিও আপলোড করেন তাহলে টাকা আয় করা যাবে।টাকা আয় করার জন্য কিছু শর্ত আছে। ইউটিউব আপনাকে এমনিতেই টাকা দিবে না এজন্য আপনাকে আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে মনিটিজেশন করে নিতে হবে। মনিটিজেশনের কিছু শর্ত থাকে সেগুলো পূরণ হয়ে গেলে ইউটিউব আপনার চ্যানেলকে অটোমেটিক মনিটিজেশন করে দিবে।

যেমন আপনার চ্যানেলে যদি ১০০০ সাব্স্ক্রাইবার থাকে এবং ওয়াচ টাইম যদি ৪০০০ ঘন্টা হয় তাহলে কিন্তু আপনার চ্যানেলটি মনিটিজেশন হবে তাতে কোনো সন্দেহ নাই। এজন্য বেশি বেশি ইউটিউব ভিডিওর উপর গুরুত্ব দিতে হবে তা না হলে আয় করতে পারবেন না। আপনার চ্যানেল যদি একবার হিট হয়ে যায় তাহলে আর আপনাকে চিন্তা করতে হবে না। আপনি আপনার চ্যানেল থেকে ভিবিন্ন ভাবে আয় করতে পারবেন। এফিলিয়েট মার্কেটিং,চ্যানেল বুস্টিং সহ আরও অনেক উপায় আছে যেগুলো থেকে খুব সহজে আয় করা যাবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২১

অনলাইনে ই-পাসপোর্ট করার নতুন নিয়ম

ইউটিউব ভিডিও থেকে টাকা ইনকাম কিভাবে করবেন।

কিভাবে গুগল অ্যাডসেন্স আবেদন করবেন

ইউটিউব ভিডিও কিভাবে প্রমোশন করতে হয়।

আপনার ইউটিউব ভিডিও প্রমোশন করতে হলে অবশ্যই ভিবিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া সাইট আছে সেগুলোতে আপনার ভিডিও পাবলিশ করতে হবে।এছাড়া কোয়ারা তে ইউনিক ভিজিটর পাওয়া যায় কোয়ারা প্রশ্ন উত্তর দিয়ে আপনি আপনার সাইটের মার্কেটিং করে নিতে পারেন। আপনার যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে তাহলে ভিজিটর নিয়ে চিন্তা না করলেও হবে দেখবেন ভিজিটর আপনার ইউটিউবে এমনিতেই গাড়ির মত আসবে।

এজন্য আপনি চাইলে আপনার নিস সম্পর্কিত একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে নিতে পারেন।একটি ওয়েবসাইট বানাতে বেশি খরচ হয়না 1500 থেকে 2000 টাকায় মোটামুটি ভালো মানের একটা ওয়েবসাইট বানাতে পারবেন। এছাড়া আপনার ভিডিওটি ফেসবুক,লিংকডিন এবং টুইটারে দিতে পারেন।এতে বিপুল পরিমাণ একটা ভিজিটর আপনার সাইটে আসবে। ভিডিও ভাইরাল করার জন্য আপনাকে নিস রিলেটেড ভিডিও পাবলিশ করতে হবে।এবং সেটা রেগুলার করতে হবে তাহলে দেখবেন ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button