ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার উপায়।

ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার উপায় আমার আর্টিকেলে খুব সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।ফেসবুক পেজ ব্যাবহার করে অনেক গুলো উপায়য়ের মাধ্যমে আয় সম্ভব।

বিগত কয়েক বছর ফেসবুকের অনেক উত্থান পতন গেছে।এ সকল বাধা কাটিয়ে আবার ফেসবুক উঠে দাঁড়িয়েছে এবং জালের মত বিস্তার করেছে সারা বিশ্বকে।ফেসবুক যেহেতু বিলিয়ন মানুষ ব্যাবহার করছে সেহুতু ফেসবুক ও এই সুযোগ টাকে কাজে লাগিয়ে আয় করার চিন্তা শুরু করেছে।

আরও জানুনঃ

ফেসবুক পেজ খোলার নিয়ম ২০২১

অনলাইন আয় কেন করবেন না?অনলাইন আয় 2021

ফেসবুকের পরিসংখ্যানটি নিচে দেওয়া হলঃ

  • বিলিয়ন পরিমান লোক এখন Facebook,messenger,whats-app এবং Instagram ব্যাবহার করছে।
  • প্রতেক মাসে ফেসবুক প্রায় ২ মিলিয়ন ব্যাবহারকারী পাচ্ছে।
  • ৮০ মিলিয়ন পেজ ব্যাবসার জন্য ব্যাবহার করা হচ্ছে যেখানে ৬ মিলিয়ন বিজ্ঞপন আছে।

ফেসবুক পেজ থেকে আয়ঃ

ফেসবুক পেজ এবং গ্রুপ থেকে বিপুল পরিমান টাকা আয় করার সুযোগ আছে।আপনি যখন একটি পেজে কারও ভিডিও দেখেন, সেখানে ভিডিওর প্রথমে অথবা শেষে আপনি একটি বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন।

আপনি ও আপানার পেজ টি ভিবিন্ন কোম্পানির কাছে প্রমোশন করে আয় করতে পারবেন।কিন্তু গ্রুপে কিছু সীমাবদ্ধতা আছে কারন এখানে নিদিষ্ট কিছু লোক থাকে এজন্য আয় কম হয়।এছারাও আপনি গ্রুপ খুলে ভিবিন্ন ব্যবসাহিক লোককে সাহায্য করতে পারবেন।

পেজ থেকে টাকা আয় করার কিছু পদ্ধতিঃ

  • পণ্য বিক্রির মাধ্যমে
  • অ্যাফিলিয়েট এবং রেফার প্রোগ্রাম চালু করে
  • স্পন্সারশিপ এবং বিজ্ঞাপন থেকে আয়
  • ভিডিওর মধ্যে বিজ্ঞাপন দিয়ে
  • পেজ বিক্রি করে

পণ্য বিক্রির মাধ্যমেঃ

ফেসবুক সামাজিক মাধ্যম এবং ই-কমার্স মধ্যম দুইটিতেই খুব শক্ত অবস্থানে আছে।ফেসবুক শপ প্রোডাক্ট ডিসপ্লেতে প্রদর্শন করে এবং প্রোডাক্ট বিক্রি করে থাকে।কিছু ধাপ অনুসরণ করে প্রোডাক্ট গুলো ফেসবুক শপে যুক্ত করা যায়।

ফেসবুক ব্যাবহার উপযোগী প্রোডাক্ট যুক্ত করতে হবে এছাড়া ফেসবুক সেটাকে রিভিও করবে না।বিশেষ করে স্থানীয় এলাকায় প্রোডাক্ট বিক্রি করার জন্য মার্কেটপ্লেসে প্রোডাক্ট গুলো লিস্ট করতে হবে।

আরও জানুনঃ ব্লগিং করে মাসে ৩০ হাজার টাকা আয় করার কৌশল।

অ্যাফিলিয়েট এবং রেফার প্রোগ্রাম চালু করেঃ

ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা এবং বিক্রি বাড়ানোর জন্য অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম চালু করে।এই সুযোগ ব্যাবহার করে

বিপুল পরিমান আয় করা সম্ভব।অ্যাফিলিয়েট প্রগ্রামে নিদিষ্ট একটি লক্ষ দেওয়া থাকে,কেবল মাত্র এই- লক্ষ পুরন করতে পারলেই অ্যাফিলিয়েট একটা কমিশন দেয়।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর অনেক গুলো সাইট আছে।যারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চান তারা সাইট ঘুরে ঘুরে কমিশন ভালো দেখে এমন একটা সাইটে শুরু করতে পারেন।

স্পন্সারশিপ এবং বিজ্ঞাপন থেকে আয়ঃ

মাজে মধ্যে আমরা শুনে থাকি এক ক্লিকে হাজার টাকা আয়।হ্যাঁ,ঠিক ই শুনছেন ফেসবুকে একটা পোষ্টের বিনিময় বিপুল পরিমান টাকা আয় করা যায়।এটা অন্যান্য সোশাল মাধ্যমে ও সম্ভব।

আরও জানুনঃ

এস ই ও শিখি এবং ওয়েবসাইটে ট্রাফিক নিয়ে আসি

বুটস্ট্রাপ ৪ কি?বুটস্ট্রাপ কোথায় ব্যবহার করা হয় ?

ভিডিওর মধ্যে বিজ্ঞাপন দিয়েঃ

ফেসবুক থেকে আয় করার আরেকটি মাধ্যম হলো ভিডিওর মধ্যে বিজ্ঞাপন সো করে।আপনার পেজটি যদি নিদিষ্ট লক্ষমাত্রা অর্জন করে থাকে তাহলে ফেসবুক কমনিটি আপনার পেজে বিজ্ঞাপন দিবে।সেখান থেকে আয় করা সম্ভব।


তবে এই ক্ষেত্রে আপনার পেজে ১০০০০ ফলোয়ার লাগবে এবং শেষ ৬০ দিনে আপনার ৩ মিনিটের ভিডিও তে ৬০

হাজার ভিও লাগবে।

পেজ বিক্রি করেঃ

আপনি চাইলে পেজ বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।নিদিষ্ট টাকার বিনিময়ে যারা আপনার পেজ কিনতে আগ্রহি

তাদের কাছে আপনি আপনার পেজ বিক্রি করতে পারেন।এতে আপনার একটা মোটা অঙ্কের আয় হবে।

ফেসবুক পেজ থেকে আয় করার উপায় জানা থাকলে আপনি খুব সহজেই আয় করতে পাড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button